বুধবার থেকে শিল্পকলায় শুরু হচ্ছে ‘জাতীয় পিঠা উৎসব’

ফিচার ডেস্ক

পিঠা বাঙালির একটি গুরুত্বপূর্ণ খাদ্যদ্রব্য। পিঠা পুলির বাংলাদেশ এটি আমাদের দীর্ঘকালের পরিচয় বহন করে। হাজার বছর ধরে বাঙালির উৎসব-পার্বণে পিঠা অনিবার্য উপাদান হিসেবে আমাদের সংস্কৃতির অংশ হয়ে আছে। পিঠার নামে যেমন বৈচিত্র রয়েছে তেমনি স্বাদে-গন্ধেও রয়েছে বিশেষত্ব। ঐতিহ্যবাহী গ্রাম বাংলার বাহারি পিঠা, একসময় পাড়ায়-পাড়ায়, মহল্লায়-মহল্লায় ছোট-বড় সকলেই পিঠা খাওয়ার আনন্দে মেতে উঠত। কিন্তু সময়ের সঙ্গে সঙ্গে মানুষের জীবনযাত্রা বদলে যাচ্ছে অনেক, নগরের এই ব্যস্তময় জীবনের গর্ভেও, বাড়ির উঠানে পিঠা তৈরীর সেই আমেজ হারিয়ে যাচ্ছে অনেকটা। তাই অঞ্চলভিত্তিক বিশেষায়িত ও লুপ্তপ্রায় পিঠা শিল্পকে তুলে আনার লক্ষ্যে সারাদেশব্যাপী জাতীয় পিঠা উৎসবের আয়োজন করছে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি।

সংস্কৃতির এই অন্যতম অনুষঙ্গকে তুলে ধরতেই সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের পৃষ্ঠপোষকতায় ‘মাছে ভাতে বাঙালি, ঐতিহ্যমন্ডিত পিঠাপুলি, রন্ধন আর পিঠার বাহারে শিল্পী আছে ঘরে ঘরে’ এই প্রতিপাদ্যে দেশের ৬৪ জেলায় জাতীয় পিঠা উৎসব-২০২৪ আয়োজন করেছে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি। ৩১ জানুয়ারি (বুধবার) থেকে ১০ ফেব্রুয়ারি (শনিবার) পর্যন্ত এই আয়োজন চলবে রাজধানীর সেগুন বাগিচায় শিল্পকলা একাডেমি প্রাঙ্গনে। একইসাথে দেশব্যাপী ৬৪ জেলায় একযোগে ৩১ জানুয়ারি (বুধবার) থেকে ০২ ফেব্রুয়ারি (শুক্রবার) পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে এই পিঠা উৎসব।

উৎসবে বিভিন্ন জেলার প্রান্তিক পর্যায় থেকে অংশগ্রহণ করবেন পিঠাশিল্পীরা। এবার উৎসবে খানিকটা ভিন্নতা যোগ করা হয়েছে। যারা পারিবারিক ঐতিহ্য ধরে পরিবারের জন্য পিঠা তৈরী করেন এবং লুপ্ত প্রায় পিঠাকে বংশ পরম্পরায় ধরে রেখেছেন তাদের অগ্রাধিকার দেয়া হয়েছে। প্রতিদিন ২ জন করে শিল্পী পিঠা উৎসবে একটি স্টলে একদিন অংশগ্রহণ করবেন এবং মূল্যায়ন কমিটি পিঠার গুনমান, ভিন্নতা এবং স্বাদ যাচাই করে নম্বর প্রদান করবেন। তার মাধ্যমেই ১ম, ২য় এবং ৩য় জন পুরস্কৃত হবেন। এবার পিঠা উৎসবে অংশ নেবে ৫০টির অধিক স্টল। অংশগ্রহণকারী প্রত্যেককে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির সনদ প্রদান করা হবে। এছাড়াও দেশব্যাপী ৬৪ জেলায় একযোগে যে উৎসব হবে, তাতে জেলা শিল্পকলা একাডেমির ব্যবস্থাপনায় অঞ্চল ভিত্তিক পিঠাশিল্পীরা অংশগ্রহণ করবেন।

৩১ জানুয়ারি থেকে ১০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এই আয়োজন চলবে রাজধানীর সেগুন বাগিচায় শিল্পকলা একাডেমি প্রাঙ্গনে

৩১ জানুয়ারি থেকে ১০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এই আয়োজন চলবে রাজধানীর সেগুন বাগিচায় শিল্পকলা একাডেমি প্রাঙ্গনে

৩১ জানুয়ারি (বুধবার) বিকেল ৫টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে অনুষ্ঠিত হবে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকীর সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে থাকবেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মো. মাহবুব হোসেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে থাকবেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব খলিল আহমদ এবং সম্মানিত অতিথি হিসেবে থাকবেন মঞ্চসারথি আতাউর রহমান। প্রবন্ধ পাঠ করবেন লেখক ও গবেষক বাশার খান। স্বাগত বক্তব্য রাখবেন একাডেমির সচিব (উপসচিব) সালাহউদ্দিন আহাম্মদ।

এছাড়াও পিঠা উৎসবে প্রতিদিন বিকেল ৫টায় থাকবে লোক-সাংস্কৃতিক পরিবেশনা।

সারাবাংলা/এএসজি

Scroll to Top