কমলালেবুর উপাকারিতা তো জানেন, চিকিৎসকের মুখে এই গুণ শুনলে রোজ খাওয়া শুরু করবেন

কোচবিহার: শীতকালীন সমস্ত ফলের মধ্যে কমলালেবু শীতকালীন একটি সুস্বাদু ফল। কোচবিহারের এক অভিঞ্জ চিকিৎসক বিজয় সরকার জানান, “এই ফলের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন C পাওয়া যায়। এছাড়াও রয়েছে ভিটামিন A, B, ক্যালসিয়াম, পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস, কোলিন এবং অন্যান্য আরও গুরুত্বপূর্ণ বেশ কিছু উপাদান। এই সমস্ত উপাদান যে কোনও মানুষের স্বাস্থ্যের জন্য দারুন উপকারি বলে প্রমাণিত। তাই শীতকালীন এই ফল কমলালেবু খাওয়া উচিত সকলের। স্বাস্থ্যের প্রতি সচেতন মানুষেরা কমলালেবু খেয়ে নিজেদের সুস্থ রাখতে চেষ্টা করে থাকেন। এছাড়া যারা কমলালেবু খেতে পছন্দ করেন না। তাঁদের উচিত দিনে একবার অন্তত কমলালেবু খাওয়া।”

কমলালেবুর উপকরিতা জানুন বিস্তারিত

১) কোলেস্টেরল কমায়: কমলাতে দ্রবণীয় ফাইবার থাকে। যাকে বলা হয় পেকটিন। এটি রক্তে শোষিত হওয়ার আগে শরীর থেকে কোলেস্টেরল দূর করে। এটি খারাপ কোলেস্টেরল হ্রাস করে এবং ভাল কোলেস্টেরল বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।

আরও পড়ুন: চিংড়ি-আলু-তরমুজের রসাল লটপটি, এই পদ বানিয়ে তাক লাগিয়ে দিন! রইল রেসিপি

২) দৃষ্টি শক্তির বাড়ায়: কমলালেবুর মধ্যে ক্যারোটিনয়েড ভালো পরিমাণে পাওয়া যায়। এগুলির মধ্যে থাকা ভিটামিন A চোখের শ্লেষ্মা ঝিল্লি স্বাস্থ্যকর রাখতে দারুন উপকারি। এছাড়া চোখের দৃষ্টি বাড়ায়।

চিকিৎসক চিকিৎসক

৩) ডায়াবেটিস কমায়: কমলালেবুর মধ্যে উপস্থিত পুষ্টি এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্টগুলি রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে সহায়তা করে। এটি ইনসুলিন উৎপাদনে দারুন কর্যকর ভূমিকা নেয়।

আরও পড়ুন: আপনি কি সব কিছু নিয়ে অতিরিক্ত ভাবেন? খেয়াল না করলে বড় ক্ষতি হতে পারে, জানুন

৪) ওজন হ্রাসে করে: কমলায় কম পরিমাণে ফাইবার থাকে। যা মেদ কমাতে দারুন সাহায্য করে। এটি শরীরের মেদ বাড়তে দেয় না। যা শরীরের ওজন কমাতে সাহায্য করে থাকে।

৫) ত্বকের জন্য উপকারী: কমলা লেবুর মধ্যে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট রয়েছে। যা বার্ধক্যজনিত লক্ষণগুলির কমানোর জন্য পরিচিত। ত্বককে ফ্রি র‌্যাডিক্যাল ক্ষতি থেকে রক্ষা করতে সহায়তা করে।

৬) রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়: কমলাতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন C রয়েছে। এটি মানব শরীরের স্বাস্থ্যকর ইমিউন সিস্টেম তৈরি করে। এছাড়া শরীরকে বিভিন্ন রোগ থেকে দূরে রাখে।

৭) বাতের ব্যথা কমায়: কমলাতে ভিটামিন C রয়েছে। এটি একটি ভাল অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট হিসাবে বিবেচিত হয়। যা শরীরের জয়েন্টগুলোতে ব্যথা কমাতে সহায়তা করে। এছাড়াও এটি হাড় সম্পর্কিত ব্যাধি সৃষ্টি করতে রোধ করে।

৮) ক্যানসার হতে দেয় না: কমলা লেবুতে ডি-লিমোনিন থাকে। এটি এক ধরণের যৌগ। যা ফুসফুসের ক্যান্সার, ত্বকের ক্যান্সার এমনকি স্তনের ক্যান্সারের মতো ক্যানসার প্রতিরোধে সহায়তা করে।

Sarthak Pandit

Published by:Raima Chakraborty

First published:

Tags: Lifestyle tips, Orange

Scroll to Top